Spread the love
image_pdfimage_print

মাসুম আল ইসলাম ভাঙ্গা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি: ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার ঘারুয়া ইউনিয়নের শরীফাবাদ বাজারে বর্তমান এমপি ( স্বতন্ত্র) মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন সর্মথকদের হামলায় আ’লীগের ২০জন নেতাকর্মী আহত হয়েছে।

আহতদের মধ্যে ১২জনকে ভাঙ্গা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। গুরুতর আহত জাহাঙ্গীর মেম্বারকে ফরিদপুর মেডিকেল হাসপাতালের ট্রমা সেন্টারে রির্ফাট করা হয়েছে।পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শুক্রবার সকালে মিছিল থেকে হামলার শিকার হন এরা।

এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। সংঘর্ষ এড়াতে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত মামলা হয়নি।

এলাকাবাসী জানায়,শরীফাবাদ স্কুল এন্ড কলেজের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন আগামী শনিবার হওয়ার কথ ছিল।এই নির্বাচনে আ’লীগ ও সতন্ত্র এমপির পৃথক দুটি প্যানেলে নির্বচনে অংশ নেয়। হঠাৎ দুদিন আগে নির্বাচন স্থগিতের খবর শুনে শুক্রবার সকালে আওয়ামী লীগের জাহাঙ্গীর মেম্বারের নেতৃত্বে ও বর্তমান সাংসদ নিক্সন চৌধুরী গ্রুপের মতিয়ার রহমানের নেতৃত্বে নির্বাচন হওয়ার পক্ষে ঊভয় গ্রুপ মিছিল বের করার চেষ্টা করে। পুলিশের অনুরোধে আ’লীগ গ্রুপ মিছিল বন্ধ করে কিছু কর্মি স্থান ত্যাগ চলে যায়। মতিয়ার পক্ষ পুলিশের বাধাঁ উপেক্ষা করে মিছিল বের করে। মিছিলে স্থানীয় আ’লীগ নেতা শামসুদ্দিন শরীফ,জাকির চেয়ারম্যান ও কাজী জাফরউল্লাকে উল্লেখ করে বিভিন্ন অকথ্য ভাষায় শ্লোগান দেয়। জাহাঙ্গীর মেম্বার তার প্রতিবাদ করলে মিছিল কারীরা আ’লীগ সমর্থকদের অর্তকিত হামলা চালায় ।এ সময় অন্তত ২০ আ’লীগ নেতা কর্মি আহত হয়েছে।এরা হল-ইঊনিয়ন আ’লীগের সহ সভাপতি আঃ হক মাতুব্বর, সাংগঠনিক সম্পাদক হায়দার মীর,ওয়ার্ড সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর মেম্বার,উপদেষ্টা আউয়াল খলিফা,হবি হাওলাদার,শামচেল শেখ,মান্নান হাওলাদার,সুর্য় হাওলাদার,হবি খন্দকার,রাজা মোল্লা,অহিদ খন্দকার,বাকি মুন্সি, শেখ আচমত সহ আরো কয়েকজন।

এ ঘটনায় ওসি (তদন্ত) মিরাজ হোসেন বলেন,বর্তমান পরিস্থিত শান্ত রয়েছে।

নির্বাচন স্থগিত হওয়ার বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কাজী ফয়সাল জানান,নির্বাচন মৌখিক ভাবে স্থগিত করা হয়েছে,তবে এখনও কোন কাগজ পত্র পাইনি।